শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০২:৪৭ অপরাহ্ন

গ্যাসের দাম বাড়াতে ১১ মার্চ থেকে আবার গণশুনানি

ওয়ান নিউজ 24 বিডি ডেস্ক
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

নিউজ ডেস্ক :
গ্যাসের দাম বাড়াতে আগামী ১১ মার্চ থেকে আবার গণশুনানি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। ১১ থেকে ১৪ মার্চ টানা শুনানি করবে কমিশন। একই অর্থবছরের মধ্যে গ্যাসের দাম বাড়ানোর এটি দ্বিতীয় উদ্যোগ। এর আগে সব প্রস্তুতি নিয়েও নির্বাচনের আগে দাম বাড়ানোর প্রক্রিয়া থেকে সরে আসে কমিশন। জানা গেছে, গ্যাস বিতরণ কোম্পানিগুলো গড়ে ৬৬ শতাংশ দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে।

প্রস্তাবে বলা হয়, গ্রাহক পযায়ে এক বার্নারের গ্যাসের চুলা ৭৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা, দুই বার্নারের চুলা ৮০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ২০০ টাকা এবং মিটারযুক্ত চুলার ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ৯ টাকা ১০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১৩ টাকা ৬৫ পয়সা করার প্রস্তাব দিয়েছে।

অন্যদিকে, বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর গ্যাসের দাম প্রতি ঘনমিটারে ৩ টাকা ১৬ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৭ টাকা ৬৬ পয়সা, সার কারখানার ক্ষেত্রে ২ টাকা ৭১ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৭ টাকা, ক্যাপটিভ বিদ্যুৎকেন্দ্রের ক্ষেত্রে ৯ টাকা ৬২ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১৫ টাকা ৭০ পয়সা, শিল্প কারখানার ক্ষেত্রে ৭ টাকা ৭৬ পয়সা থেকে ১৫ টাকা করার প্রস্তাব দিয়েছে তারা। বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম ১৭ টাকা ৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ২০ টাকা এবং সিএনজির গ্যাসের দাম ৩২ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৪০ টাকা করার প্রস্তাব দিয়েছে কোম্পানিগুলো।

এদিকে গতবছরের ১৮ সেপ্টেম্বর সঞ্চালন চার্জ প্রতি ঘনমিটারে শূন্য দশমিক ২৬৫৪ টাকা থেকে বাড়িয়ে শূন্য দশমিক ৪২৩৫ টাকা করে কমিশন। চার মাসের মাথায় জিটিসিএল আবারও সঞ্চালন চার্জ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে।

এ বিষয়ে বিইআরসির সদস্য (গ্যাস) আব্দুল আজিজ খান বলেন, বিতরণ কোম্পানিগুলো তাদের গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব ধারাবাহিকভাবে জমা দিয়েছে। কমিশনের পক্ষ থেকে আগামী ১১ মার্চ তাদের প্রস্তাবিত দামের গণশুনানি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কমিশনের মূল্যায়ন কমিটি তাদের প্রস্তাবিত দামের ওপর যাচাই বাছাই শুরু করেছে। দাম বাড়বে কিনা তা এখন বলা সম্ভব নয়।

বিতরণ কোম্পানিগুলো তাদের আবেদনের যৌক্তিকতা তুলে ধরতে গিয়ে বলেছে, সরকার জ্বালানি চাহিদা মেটাতে এলএনজি আমদানি করছে। এখন প্রতিদিন ৪৫০ মিলিয়ন ঘনফুট এলএনজি সরবরাহ করা হচ্ছে। বছরের মাঝামাঝি সময়ে যা বেড়ে দাঁড়াবে অন্তত ৭০০ মিলিয়ন ঘনফুটে। বাড়তি দরে এই গ্যাস কিনে কম দামে সরবরাহ করা হবে। এতে করে জ্বালানি খাতে বিশাল ঘাটতি তৈরি হবে। যে কারণে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে কোম্পানিগুলো। কোম্পানিগুলো বলছে আমদানি করা এলএনজির প্রতি হাজার ঘনফুটের মূল্য ১০ ডলার বা ৮২০ টাকা (প্রতি ডলার ৮২ টাকা ধরে), অন্যদিকে দেশের প্রতি হাজার ঘনফুট গ্যাসের দাম ১২ টাকা ১৯ পয়সা। দৈনিক দেশের অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্র থেকে ২ হাজার ৭১৬ মিলিয়ন ঘনফুট এবং আমদানি করা এলএনজি ৭০০ মিলিয়ন ঘনফুট সরবরাহ করার হিসেব ধরে এবার গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

এদিকে গণশুনানির জন্য কমিশনের পক্ষ থেকে একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়, বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আইন ২০০৩ অনুযায়ী জিটিসিএল, তিতাস গ্যাস, বাখরাবাদ গ্যাস, জালালাবাদ গ্যাস, পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস, কর্ণফুলী গ্যাস, সুন্দরবন গ্যাস তাদের বিতরণ চার্জ ও ভোক্তা পর্যায়ে দাম পুনর্নির্ধারণের জন্য কমিশনে আবেদন জমা দিয়েছে। আবেদনগুলোর পরবর্তী কার্যক্রম নির্ধারণে এরইমধ্যে কমিশনের মাধ্যমে সেগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে গৃহীত হয়েছে।

কমিশন সূত্র জানায়, প্রথমদিন ১১ মার্চ সোমবার সকাল ১০টায় গ্যাসের দামের ওপর একটি প্রস্তাবনা উপস্থাপন করবে বাংলাদেশ তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশন (পেট্রোবাংলা)। এরপর একইদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (জিটিসিএল) প্রস্তাবিত সঞ্চালন লাইনের চার্জের ওপর শুনানি হবে। কাওরান বাজারের ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) এর অডিটরিয়ামে এই শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এরপর ১২ মার্চ সকালে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির প্রস্তাবিত দামের ওপর শুনানি হবে। এরপর দুপুর আড়াইটা থেকে সুন্দরবন গ্যাস কোম্পানি লিমিটেডের প্রস্তাবের ওপর শুনানি হবে। ১৩ মার্চ সকালে বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের আর দুপুরে জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম লিমিটেডের প্রস্তাবের ওপর শুনানি করা হবে। ১৪ মার্চ সকালে কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড এবং দুপুরে পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস কোম্পানি লিমিটেডের প্রস্তাবিত দামের ওপর শুনানি করবে কমিশন।

কমিশন বলছে, আগ্রহী কোনও ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান বা সংস্থা গণশুনানিতে অংশ নিতে চাইলে অথবা এ বিষয়ে কোনও মতামত দিতে চাইলে আগামী ৪ মার্চের মধ্যে নাম তালিকাভুক্ত করতে হবে। যারা শুনানিতে অংশ নেবেন তারা তাদের বিশ্লেষণধর্মী যুক্তি বা মতামত উপস্থাপন করতে পারবেন।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2022 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: