সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:৪১ অপরাহ্ন

চীনের হুমকিতে সতর্কতার মাত্রা বাড়াল তাইওয়ান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় বুধবার, ৩ আগস্ট, ২০২২
চীনের হুমকিতে সতর্কতার মাত্রা বাড়াল তাইওয়ান

তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন দেশটিতে সফররত মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। তবে বুধবার (৩ আগস্ট) তাইপের প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ে তাদের এ সাক্ষাতের কিছুক্ষণ আগেই তাইওয়ানের মন্ত্রিসভা জানায়, চীনের হুমকির মুখে নিরাপত্তা নিশ্চিতে দ্বীপের সামরিক বাহিনী তাদের সতর্কতার মাত্রা বাড়িয়েছে।

 

তাইওয়ানের মন্ত্রিসভার পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘কর্তৃপক্ষ দ্বীপের চারপাশে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে পরিকল্পনা প্রণয়ন করবে।
মনে করা হচ্ছে, বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) থেকে দ্বীপটিকে ঘিরে শুরু হওয়া চীনের তিন দিনের সামরিক মহড়ার ঘোষণার প্রতিক্রিয়াতেই সতর্কতার মাত্রা বাড়িয়েছে তাইওয়ান। নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই এ পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানিয়েছে তাইওয়ানের মন্ত্রিসভা।  

এদিকে ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফর ঘিরে তুমুল উত্তেজনার মধ্যেই চীনা সামরিক বাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবস্থায় রাখা হয়েছে। তারা তাইওয়ানকে ঘিরে যে কোনো সময় ‘সুনির্দিষ্ট সামরিক অভিযান’ শুরু করতে পারে বলে জানানো হয়েছে চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে।

এর আগে পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হছে, তাইওয়ানের কাছেই যৌথ সামরিক মহড়া চালাবে তারা। সেই সঙ্গে তাইওয়ানের পূর্বে সাগরে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার কথাও জানিয়েছে পিএলএ।

তাইওয়ানকে বরাবরই নিজেদের ভূখণ্ডের অংশ বলে মনে করে বেইজিং। তবে চীন কোনো সংঘাতে জড়াবে না বলে মনে করছেন তাইওয়ানের বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, পেলোসির এ সফরের জবাবে চীনের প্রতিক্রিয়া স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি উভয়ই হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্র-তাইওয়ানবিষয়ক গবেষক জেমস লি’র মতে, বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে এখন সামরিক তৎপরতা বাড়ানো হতে পারে। মহড়া হতে পারে। তবে তাইওয়ান বা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে জড়াবে না চীন।

অন্যদিকে পেলোসির সফরের প্রতিবাদ জানাতে বেইজিংয়ে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকোলাস বার্নসকে তলব করেছে চীন। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাতে মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে তলব করা হয়। নিকোলাস বার্নসের সঙ্গে আলাপকালে চীনা ভাইস পররাষ্ট্রমন্ত্রী জি ফেং গণতান্ত্রিক স্বশাসিত দ্বীপ তাইওয়ানে পেলোসির সফরের বিষয়ে ‘জোর প্রতিবাদ’ জানান।

জি ফেং বলেন, ‘পদক্ষেপটি (পেলোসির সফর) অত্যন্ত জঘন্য এবং এর পরিণতি হবে অত্যন্ত গুরুতর। চীন চুপ করে বসে থাকবে না।’ তিনি আরও বলেন, ‘তাইওয়ান চীনের এবং তাইওয়ান একসময় তার মাতৃভূমির সঙ্গে যুক্ত হবে। চীনা জনগণ কোনো চাপকে ভয় পায় না।’

তবে রাষ্ট্রদূত নিকোলাস বার্নসকে তলব করার বিষয়ে এখন পর্যন্ত ওয়াশিংটনের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2022 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: