শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:২৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :

দিল্লিতে কারফিউ জারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২১
দিল্লিতে কারফিউ জারি

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়তে থাকায় আগামী এক সপ্তাহের কারফিউ জারি করেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির প্রাদেশিক সরকার। চলতি শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) থেকে এই কারফিউ শুরু হয়ে আগামী শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। খবর এনডিটিভি’র।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বৃহস্পতিবার দুপুরে এক ঘোষণায় এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, আগামী ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত দিল্লির সব অডিটোরিয়াম, রেস্তোরাঁ, শপিংমল, জিম এবং স্পা সেন্টারগুলো বন্ধ থাকবে। সিনেমা হলগুলো খোলা রাখা যাবে, তবে সেখানে মোট ধারণক্ষমতার এক তৃতীয়াংশ মানুষ ঢুকতে পারবেন।

এই সময়সীমার মধ্যে দিল্লিতে বাড়ির বাইরে খাদ্যগ্রহণের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। বাইরের খাবার খেতে চাইলে দিল্লিবাসীকে হোম ডেলিভারি সেবার আশ্রয় নিতে হবে। সাপ্তাহিক বাজারগুলো খোলা রাখার যাবে, তবে সেসব স্থানে কঠোরভাবে করোনা বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে।

 

বৃহস্পতিবারের ঘোষণায় দিল্লিবাসীর উদ্দেশে কেজরিওয়াল বলেন, ‘আপনার ও আপনার পরিবারের সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তার বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েই সরকার এই বিধিনিষেধগুলো আরোপ করেছে। আমরা বুঝতে পারছি,(বিধিনিষেধের কারণে) আগামী এক সপ্তাহ আপনাদের কিছু অসুবিধা হবে, কিন্তু রাজ্যে করোনা সংক্রমণে নিয়ন্ত্রণ আনতে বাধ্য হয়েই এই আদেশ দেওয়া হয়েছে।’

‘তবে আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। জরুরি পণ্য ও সেবাকে কারফিউয়ের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে।’

রাজ্যে সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বাইজালের সঙ্গে বৈঠক করেন কেজরিওয়াল। বৈঠকের পর দুপুরে আগামী এক সপ্তাহব্যাপী এই বিধিনিষেধ ঘোষণা করেন তিনি।

মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে ভারতে লাগামহীনভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। দেশটির জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, ভারতে এখন করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ চলছে।

করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতজুড়েই অবনতি হয়েছে সংক্রমণ পরিস্থিতির। তবে দেশের যে রাজ্যগুলোতে সংক্রমণ ও মৃত্যুহার লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সেগুলো হলো মহারাষ্ট্র, দিল্লি, উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশ,পাঞ্জাব, তামিলনাড়ু, কেরালা ও কর্ণাটক।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) দিল্লিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ হাজার ২৮২ জন, মারা গেছেন একশরও বেশি। দিল্লির স্বাস্থ্যবিভাগ জানিয়েছে, গতবছর করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত দিল্লিতে একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ ও মৃত্যু ঘটেছে বুধবার।

বর্তমানে দিল্লির হাসপাতালগুলোতে সক্রিয় করোনারোগীর সংখ্যা ৫০ হাজার ৭৩৬ জন। রাজ্যের স্বাস্থ্যবিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অতিরিক্ত করোনারোগীর চাপে ‘ভেঙে পড়ার’ পর্যায়ে পৌঁছেছে দিল্লির হাসপাতালগুলো।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2022 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: