রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০, ০৪:৩২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
হোসেনপুরে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত বিশ্বে করোনা রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ২০ লাখ ছাড়ালো প্রধানমন্ত্রীর নিকট প্রণোদনা চেয়ে লালপুরে কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের মানববন্ধন বেতাগী ও তালতলী উপজেলার ভূমি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আইটি বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান সম্পন্ন ফলোআপ: কমলগঞ্জে দুই কিশোরকে বেঁধে নির্যাতনকারী প্রধান আসামী সাহাদত গ্রেফতার ইদে বাজার মাতাবে হোসেনপুরের  ‘মেসি-২, দাম হাঁকাচ্ছে ২৫ লাখ টাকা কিশোরগঞ্জে জোয়া খেলার আসর থেকে ৭ জনকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ নিকলী বেড়িবাঁধ পর্যটন কেন্দ্রে ৪০ পর্যটককে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত গত ২৪ ঘন্টায় ২৬৮৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত, মোট ১৮১,১২৯ হোসেনপুরে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি : গ্রেফতার ২

ধলাই নদীর পানি কমে বিপদ সীমার নিচে জলাবদ্ধতায় ফসলি জমি, বাড়িঘর ও রাস্তা নিমজ্জিত

সালাহউদ্দিন শুভ
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০
  • ১২৯ বার পড়া হয়েছে

ভারী বৃষ্টিতে বৃহস্পতিবার উজান থেকে নেমে আসা ভারতীয় পাহাড়ি ঢলের পানিতে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ধলাই নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। গত ২৪ ঘন্টায় তেমন বৃষ্টিপাত না হওয়ায় ধলাই নদীর পানি কমে বিপদ সীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে ভারী বৃষ্টির পানি জমে কমলগঞ্জের কয়েকটি ইউনিয়নের বেশ কিছু ফসলি জমি, বাড়িঘর ও রাস্তা নিমজ্জিত রয়েছে।

শুক্রবার কমলগঞ্জের আদমপুর, ইসলামপুর, পতনউষার, শমশেরনগর ও মুন্সীবাজার ইউনিয়ন ঘুরে এ চিত্র পাওয়া যায়।
উজানে ভারতীয় পাহাড়ি এলাকায় ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ায় কমলগঞ্জে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ধলাই নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে ধলাই রেল সেতু এলাকায় পানি বিপদ সীমার ১৮ দশমিক ৯৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আবার বিপদ সীমার ৮৬ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। শুক্রবার বেলা সাড়ে ৩টায় ধলাই রেল সেতু এলাকায় পানি বিপদ সীমার ১৮ দশমিক ৮৯ মিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়।

এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ড মৌলভীবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী রনেন্দ্র শঙ্কর চক্রবর্ত বলেন, গত ২৪ ঘন্টায় তেমন বৃষ্টিপাত না হওয়ায় ধলাই নদীর পানি কমে গেছে। এখন পানি বিপদ সীমার ১৮ দশমিক ৮৯ মিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। মাধবপুর ইউনিয়নের শিমুলতলা এলাকায় প্রতিরক্ষা বাঁধ কিছুটা ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। এ স্থান সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

 

এদিকে বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতায় আদমপুর, ইসলামপুর, শমশেরনগর, পতনউষার ও মুন্সীবাজার ইউনিয়নের বেশ কিছু এলাকার ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। অনেক বাড়িঘরও পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। কমলগঞ্জ-কুমরা সড়কের আদমপুরের আধকানি ও ইসলামপুর ইউনিয়নের গোলের হাওর এলাকার রাস্তা প্রায় ২ ফুট পরিমাণ পানিতে নিমজ্জিত আছে। শমশেরনগর ইউনিয়নের শিংরাউলী, বড়চেগ, কুষ্ণপুর, হাজিনগর, সতিঝির গাঁও, রাধানগর ও মরাজানের পারের বেশ কিছু এলাকার ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। পতনউষার ইউনয়িনের কেওলার হাওর, ধোপাটিলা, শ্রীসূর্য, পতনউষার গ্রাম, মুন্সীবাজার ইউনিয়নের রুপশপুর গ্রামের বেশ কিছু এলাকার ফসলি জমি জলাবদ্ধতার পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে।
কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসের সহকারি সহকারি মাঠ কর্মকর্তা (এডি) পূর্ণ সিংহ জানান, বৃহস্পতিবার পাহাড়ি ডলুয়া ছড়া, ইছা ছড়া, বাঘাছড়া ও লাউয়াছড়ার তীর উপচে আদমপুর ও ইসলামপুর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামের পানি ফসলি জমিতে প্রবেশ করে জলাবন্ধতার সৃষ্টি করেছিল। অনেক স্থানের পানি এখন কমে গেছে। তবে জলাবদ্ধতার কারণে আদমপুর ও ইসলামপুর ইউনিয়নের প্রায় ১৫০ হেক্টর ফসলি জমি এখনও নিমজ্জিত রয়েছে। তিনি আশাবাদী শুক্রবার রাতের মধ্যেই নিমজ্জিত জমি থেকে পানি নেমে যাবে।

 

শমশেরনগর ইউনিয়নের সতিঝিরগাঁও-এর কৃষক সিদ্দিকুর রহমান, পতনউষারের কৃষক আনোয়ার খান ও তবারক হোসেন বলেন, জলাবদ্ধতায় এ দুটি ইউনিয়নসহ মুন্সীবাজার ইউনিয়নের কমপক্ষে ৩৫০ হেক্টর ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। সব মিলিয়ে সারা উপজেলায় ৫০০ হেক্টর ফসলি জমি নিমজ্জিত রয়েছে।


কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আশরাফুল আলম বলেন,জলাবদ্ধতার করনে ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত ছিল এখন পানি নামতে শুরু করেছে। তিনি এখন (শুক্রবার বেলা সোয়া ৪টায়) আদমপুর ও ইসলামপুর ইউনয়িন এলাকা পরিদর্শণে যাচ্ছেন। পরিদর্শণ শেষ করে কি পরিমাণ ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত তা বলা যাবে। এ মুহুর্তে সঠিক হিসাব তিনি দিতে পারছেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2020 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com