সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন

নতুন বাজেট হবে বিনিয়োগ ও ভোক্তাবান্ধব

ওয়ান নিউজ 24 বিডি ডেস্ক
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৫ এপ্রিল, ২০১৯
  • ১৬৪ বার পড়া হয়েছে

নিউজ ডেস্ক :

২০১৯-২০ অর্থ বছরে শিল্প, ব্যবসা ও ভোক্তাবান্ধব বাজেট প্রণয়ন করা হবে। বাজেটের আকার হতে পারে প্রায় ৫ লাখ কোটি টাকার কাছাকাছি। বললেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোঃ মোশাররফ হোসেন।

আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম চেম্বার আয়োজিত ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, স্বাধীনতার সময় অন্যতম দরিদ্র রাষ্ট্র বাংলাদেশ, বর্তমান বিশ্বে উন্নয়নের ক্ষেত্রে মিরাক্যাল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এসএমই হিসেবে যাত্রা করে অনেক বৃহৎ শিল্পের জন্ম হয়েছে। উদ্যোক্তারা উন্নত বিশ্বের অনুকরণে মানসম্পন্ন পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানি করছেন। যার ফলে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে। মানবসম্পদ আমাদের সবচেয়ে বড় সম্পদ।

মোশাররফ হোসেন বলেন, অবকাঠামোগত উন্নয়নের বহুমুখী প্রভাবে মানুষের ক্রয়ের ইচ্ছা বৃদ্ধি পাচ্ছে। একটি সুষম বাজেট প্রণয়নের লক্ষ্যে ঘাটতি ৫% এর বেশী হবে না। অভ্যন্তরীণ সম্পদ হতে ৬৫% প্রয়োজন মেটানো হবে।

তিনি বলেন, ব্যবসাকে আধুনিকায়ন করতে হবে এবং ট্যাক্সের আওতা বাড়াতে হবে। জাতীয় আয়ে শিল্পের অবদান ৩৩% হতে ২০২১ সালের মধ্যে ৩৫% এ উন্নীত করতে হবে। সরকার সংযোজন শিল্পের চেয়ে দেশীয় উৎপাদন শিল্পের উপর অনেক বেশী গুরুত্বারোপ করছে।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, এ বছর থেকে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করা হবে। প্রয়োজনে কিছু ছাড় দিয়ে হলেও এ আইন বাস্তবায়ন করা হবে। নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন হলে বেশি রাজস্ব পাওয়া যাবে।

সভায় স্বাগত বক্তব্যে চিটাগাং চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম করমুক্ত আয় সীমা বৃদ্ধি, লিমিটেড কোম্পানির ক্ষেত্রে করহার এবং সারচার্জ কমানোর প্রস্তাব করেন। বক্তব্যে তিনি বলেন, ব্যবসায় উদ্যোগ লাভজনক বা টেকসই করার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট নীতিমালা দীর্ঘমেয়াদী অর্থাৎ কমপক্ষে ১০ বছরের জন্য প্রণয়ন করা উচিত।

চেম্বার সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ নুরুন নেওয়াজ সেলিম বলেন- শিল্পায়ন, ব্যবসাবান্ধব বাজেট ও রাজস্ব নীতি, ব্যাপক কর্মসংস্থান, রাজস্ব আয়, প্রবৃদ্ধি ও দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নিশ্চিত করে। শিল্পায়নের লক্ষ্যে দেশী-বিদেশী বিনিয়োগ আকর্ষণে মিরসরাই, আনোয়ারা, ফেনীসহ যেসব ইকনোমিক জোন বাস্তবায়নাধীন রয়েছে তা দ্রুত গতিতে সম্পন্ন করে ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করার ক্ষেত্রে সরকার দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ কোন সেক্টর বা অঞ্চলের প্রতি যাতে বৈষম্যমূলক আচরণ করা না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে বাজেট প্রণয়ন এবং চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কে পণ্য পরিবহনে ১৩টন ওজনের বাধ্যবাধকতা প্রত্যাহার করার আহবান জানান।

এ সময় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য মোঃ ফিরোজ শাহ আলম, কানন কুমার রায়, মোঃ মেফতাহ্ উদ্দিন খান, মোঃ রেজাউল হাসান ও সৈয়দ গোলাম কিবরীয়া, চট্টগ্রামের বিভিন্ন কর অঞ্চলের কমিশনার জি এম আবুল কালাম কায়কোবাদ, মোঃ মাহবুবুর রহমান, ব্যারিস্টার মুতাসিম বিল্লাহ ফারুকী, মোঃ হেলাল উদ্দিন সিকদার, চট্টগ্রাম কাস্টমস কমিশনার কাজী মোস্তাফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনার মোহাম্মদ এনামুল হক, বন্ড কমিশনার মোঃ আজিজুর রহমান, মহাপরিচালক মোঃ শফিকুল ইসলাম, চেম্বার পরিচালকবৃন্দ এ. কে. এম. আক্তার হোসেন, কামাল মোস্তফা চৌধুরী, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), ছৈয়দ ছগীর আহমদ, সরওয়ার হাসান জামিল, এস. এম. শামসুদ্দিন, মোঃ আবদুল মান্নান সোহেলসহ প্রাক্তন পরিচালকবৃন্দ, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ও অন্যান্য সরকারি উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন খাতের ব্যবসায়ী নেতৃবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2019 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com