বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০৫:৫৮ পূর্বাহ্ন

নিকলীতে সংস্কারের অভাবে নিকলী-করগাঁও সড়কটি মরণফাঁদে পরিণত

ওয়ান নিউজ 24 বিডি ডেস্ক
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ৪৯৫ বার পড়া হয়েছে

দিলীপ কুমার সাহা

কোনো কোনো স্থান ভেঙে নিশ্চিহ্ন হওয়ার উপক্রম হয়েছে। অনেক স্থানে ছোট-বড় গর্ত থাকায় উঁচু-নিচু হয়ে আছে। বাতাস জোরে শুরু হলে বালু উড়ে যাত্রী ও পথচারীদের নাকে-মুখে ঢোকে। এ দুরবস্থা কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার নিকলী-করগাঁও সড়কের।
স্থানীয় লোকজন জানান, নির্মাণের পর আর সংস্কার না করায় সড়কের এ দুরবস্থা হয়েছে। হাওরের মধ্যে নির্মিত সাবমার্সিবল সড়কটিতে বছরের ছয় মাস স্থানীয় নিকলী সদর ও করগাঁও দুটি ইউনিয়নের ২০ হাজার মানুষ চলাচল করে। কিন্তু এখন অবস্থা খারাপ হওয়ায় তারা দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ বয়স্ক ও রোগী এবং ব্যবসায়ীদের ।

কিশোরগঞ্জে নিকলী-করগাঁওয়ের সড়কের দৈর্ঘ্য মাত্র সাড়ে চার কিলোমিটার। কিন্তু সড়কজুড়ে রয়েছে অসংখ্য গর্ত ও ভাঙা। এতে নিকলী উপজেলা সদরের লোকজন কিশোরগঞ্জ জেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগ ও করগাঁওয়ের লোকজন নিকলী সদরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে দুই ইউনিয়নের প্রায় ২০ হাজার মানুষ ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নিকলী সদর ও করগাঁও ইউনিয়নের লোকজন নিকলী-করগাঁও সাড়ে চার কিলোমিটার সড়ক দিয়ে বছরের ছয় মাস জেলা ও উপজেলা সদরে যাতায়াত করে। নিকলী ইউনিয়নের অনেক রোগী ওই সড়ক দিয়ে জেলা সদর হাসপাতালে আনা নেওয়া করেন। এবং করগাঁওয়ের রোগীদেরকে নিকলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেস্কে ভর্তি করান। এ ছাড়াও ব্যবসায়ীরা এ সড়ক দিয়ে কিশোরগঞ্জ থেকে বিভিন্ন যানবাহনে মালামাল আনা নেওয়া করেন। ব্যবসায়ী নেপাল সাহা বলেন, এ সড়ক দিয়ে একদিন মাল আনলে আর যেতে ইচ্ছা হয়না। কিন্ত জীবিকার তাগিদে না গিয়ে আর পারিনা। সরকার যদি সড়কটির প্রতি একটু নজর দিতো আমাদের উপকার হতো।গতকাল গতকাল মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল থেকে এ সড়ক দিয়ে আসা নিকলী নেয়াপাড়ার গ্রামের কাসেম নামে কমরব্যাথার এক রোগী বলেন,কয়েদিন চিকিৎসা করে যে টুকু ভালো হয়ছি এই সড়ক দিয়ে আইসা আরো ব্যাথা বাড়ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে নিকলীর গবীন্দ্রপুর গ্রামের কয়েকজন বাসিন্দা জানান, রাস্তার কাজ শুরু সময় নিম্ন মানের কাজ করায় আজ আমাদের দোর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
এলজিইডি নিকলী উপজেলা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে,২০০৯-১০ অর্থবছরে সড়কের নিকলীর থেকে করগাঁও ব্রিজ পর্যন্ত সাড়ে চার কিলোমিটার ৩ কোটি ৬৪ লাখ ৩ হাজার ৮২০ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়। এরপর এ সড়কে আর কোনো সংস্কারকাজ হয়নি।
নিকলী উপজেলা প্রকৌশলী আঃ রহমার মুহিম বলেন, এলজিইডির কিশোরগঞ্জ কার্যালয়ের অতিরিক্ত প্রকৌশলী সড়কটি পরিদর্শন করেছেন। এ অর্থবছরে সড়কটি সংস্কার করার পরিকল্পনা আছে।

amena.com.bd

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2021 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: