রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন

বদলগাছীতে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে মানববন্ধন

আশরাফুল নয়ন, নওগাঁ
  • আপডেট সময় সোমবার, ৩০ মে, ২০২২
বদলগাছীতে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে মানববন্ধন

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার দেবরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামছুল আলম হেলালের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।

এর প্রতিবাদে সোমবার (৩০মে) সকাল ১০টায় স্কুলের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর আয়োজনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় প্রধান শিক্ষককে দ্রুত অপসারণ করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়। এর আগে গত ২৮এপ্রিল প্রধান শিক্ষকের নানা অনিয়ম দুনীতির অভিযোগে জেলা প্রশাসক, উপজেলা নিবাহী কমকর্তা, জেলা ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুনজুর রহমান, সাবেক সভাপতি মামুনুর রশীদ, বদলগাছী উপজেলা আওয়ামী সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম পল্টন, গ্রামবাসী আব্দুর রহিম, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

মাবনবন্ধনে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুনজুর রহমান বলেন, প্রধান শিক্ষক নিজের ইচ্ছামত স্কুল পরিচালনা করেন। শিক্ষার্থীদের সাথে খারাপ আচরণ করেন। নিয়ম বহির্ভূতভাবে কমিটিতে নিজের ছোট ভাই ও ভাতিজা বউকে সদস্য করেছেন। গত দুই বছর তিনি কমিটির সদস্যদের নিয়ে কোন ধরনের মিটিং করেননি। ২০১৯সাল থেকে ২০২১সাল পর্যন্ত শিশু স্লিপ ও ক্ষুদ্র মেরামতের বরাদ্দকৃত অর্থের কোন হিসাব দেয়নি। কোন ক্লাশ না দিয়ে নিজের মত করে স্কুলে আসা যাওয়া করেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই।

স্থানীয় গ্রামবাসী আব্দুর রহিম বলেন, প্রধান শিক্ষক ক্লাশ নেয়না। বাচ্চাদের সাথেও মাঝে মাঝে অকারনে খারাপ আচরণ করেন। এগুলোর প্রতিবাদ করতে গেলে উল্টো আমাদের হুমকি দেয়।

আনোয়ার হোসেন নামের অভিভাবক বলেন, আমার ছেলে রাব্বি হোসেন পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ে। কিছুদিন আগে স্কুলের একটি দেয়াল ঘরি ভেঙ্গে যায় আমার ছেলের হাত থেকে পড়ে। ৫০০টাকা জরিমানাও দিয়েছিলাম। তবুও আমার ছেলের কানে থাপ্পর মেরেছিল প্রধান শিক্ষক, যার কারনে কান দিয়ে খুব রক্ত বের হচ্ছিল। পরে ডাক্তার দেখানোর পর ওষুধ খেয়ে সুস্থ হয়েছে। এমন নোংরা মানসিকতার শিক্ষক আমরা চাইনা।

স্কুলের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী রাব্বি হোসেন, চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী হোসাইন আল আবিরসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, হেড স্যার আমাদের সাথে খুব খারাপ আচরণ করেন। আমরা একটু চেচামেচি করলেই মারধর করেন এবং নোংরা ভাষায় গালিগালাজ করেন। স্যারের আচরণ ভালো না।

এ বিষয়ে বদলগাছী উপজেলা সহকারী শিক্ষা কমকর্তা আব্দুর রউফ জানান, প্রধান শিক্ষকের নানা বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে তা তদন্ত করা হচ্ছে, তদন্ত শেষে আমরা প্রতিবেদন জমা দিবো। এখন বিস্তারিত কিছু বলা যাচ্ছেনা।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক সামছুল আলম হেলাল বলেন, আমার বিষয়ে যে সব অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তা সত্য নয়। কিছু কাজে বা স্কুল পরিচালনা করতে গেলে ভুল ক্রুটি হয়ে থাকে। যা হয়তো আমার ক্ষেত্রে হয়েছে। যেহেতু আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ গুলোর তদন্ত চলছে তাই এখন এর বেশি কিছু বলতে চাইনা। যদি প্রমানিত হয় আমি দোষি তাহলে সেটা মাথা পেতে নিবো।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2022 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: