বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৯:৩৫ পূর্বাহ্ন

বেলকুচিতে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করলেন ইউএনও

খন্দকার মোহাম্মাদ আলী, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০২০
  • ১৩৭ বার পড়া হয়েছে

করোনা মহামারির মাঝে জনজীবন বিপর্যস্ত দেশব্যাপী দীর্ঘদিন যাবত সকল ধরণের সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজনে রয়েছে সরকারের নিষেধাজ্ঞা। যার ফলে বিয়ের মতো সামাজিক অনুষ্ঠানাদি অনেকটা অগোচরে ও অল্পপরিসরে হচ্ছে। থেমে নেই বাল্যবিবাহের আয়োজন।

 

করোনা পরিস্থিতিতে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। দেশের লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থীরা রয়েছে অনিশ্চয়তার মধ্যে। বিশেষ করে মেয়েদের অবস্থা খুবই শোচনীয়! তাদেরকে একপ্রকার জোর করেই বিয়ে দিচ্ছে অভিভাবকেরা। যার ফলে প্রত্যন্ত অঞ্চলে বাল্যবিবাহের শিকার হচ্ছে অনেক তরুণী।
তেমনিভাবে ২১শে আগষ্ট, শুক্রবার সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি উপজেলার দৌলতপুত ইউনিয়নের আজুগড়া পাকুরতলা গ্রামে বাল্যবিবাহ বিবাহের আয়োজন করা হয়।

 

গোপন সুত্রে খবর পেয়ে বাল্যবিবাহের আয়োজন বন্ধ করে দেন বেলকুচি উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আনিসুর রহমান। তিনি নবম শ্রেনীতে পড়ুয়া ছাত্রীকে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা করেন।

 

গতকাল শুক্রবার বিকালে বেলকুচি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের আজুগড়া পাকুরতলা গ্রামে কনের বাড়ীতে উপস্থিত হন। তখন কনের বাড়ীতে নবম শ্রেণীর ছাত্রী (১৪) এর সাথে সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি উপজেলার দেলুয়া গ্রামের তাঁত শ্রমিক (৩২) এর বিয়ের আয়োজন চলছিল।কনে অপ্রাপ্তবয়স্ক।ভ্রাম্যমাণ আদালত বাল্যবিবাহ বন্ধ করে কনের চাচাকে ১০ হাজার টাকা ও বরকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। কনের মাকে বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে বুঝালে তিনি তার ভুল বুঝতে পারেন এবং তার মেয়েকে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিবাহ দিবেন না বলে মুচলেকা দেন।
এবিষয়ে বেলকুচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আনিসুর রহমান জানান, বাল্যবিবাহ,মাদক,জুয়া ও বিভিন্ন আইনবিরোধী কর্মকা-ের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বেলকুচি থানার উপ-পরিদর্শক মো: রবিউল ইসলাম ও পেশকার মোঃ হাফিজ উদ্দিন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2020 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
%d bloggers like this: