সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:২৩ অপরাহ্ন

ভৈরবে ইউনাইটেড হাসপাতালে নার্স খুনের ঘটনায় গ্রেফতার ১

সঞ্জিত চন্দ্র শীল
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০২২
ভৈরবে ইউনাইটেড হাসপাতালে নার্স খুনের ঘটনায় গ্রেফতার ১
ভৈরবের ইউনাইটেড হাসপাতালে হিন্দু নার্সকে ধর্ষণ করে হত্য করেছে এমডি হানিফুর রহমান সুমন। ধর্ষণ ও খুনের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে হাসপাতালের ম্যনেজিং ডাইরেক্টর এমডি হানিফুর রহমান সুমনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ইউনাইটেড হাসপাতাল অ্যান্ড অর্থোপেডিক সেন্টারে নার্সের চাকরি করতেন রিমা প্রামানিক(২০)। নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের পিরিজকান্দি গ্রামের (হাই স্কুলের পেছনের বাড়ি) সেন্টু প্রামাণিকের মেয়ে সে।
গত ১১.০৭.২০২২ইং রোজ সোমবার সকাল ৯টার দিকে হাসপাতালের একটি কক্ষ থেকে রিমার মরদেহ উদ্ধার করে ভৈরব থানা পুলিশ। তার পরিবার সূত্রে জানা জায়, গত বুধবার হাসপাতাল থেকে ছুটি নিয়ে বাড়িতে আসে রিমা। পরের দিন শনিবার পুলিশে চাকুরী নিবে বলে, হাসপাতালে পদত্যাগ পত্র দিয়ে বাড়িতে চলে আসে রিমা। পরবর্তীতে রবিবার হাসপাতাল কতৃপক্ষ বাড়ি থেকে তাকে ডেকে নিয়ে যায়। গত সোমবার সকালে হাসপাতালের একটি কক্ষে রিমার মৃত দেহ পাওয়া যায়। রিমার পরিবার বলেন -আমরা হাসপাতালে এসে দেখি রিমার গলায় ওড়না প্যাচানোর দাগ, আমার মেয়ে হসপিটালে কেন গলায় ফাঁস দিবে?
ইউনাইটেড হাসপাতালের পার্শবর্তী হাসপাতালের কর্মচারী, মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভ, পরিবার ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তবর্গরা মনে করেন, রিমা প্রমানিক একজন সুন্দরী মেয়ে। সে চাকরি ছেড়ে চলে যাওয়া হাসপাতালের এমডি হানিফুর রহমান সুমন অনেক ক্ষুব্দ হন। পরবর্তীতে কৌশলে মেয়েটিকে বাড়ি থেকে ডেকে এনে গভীর রাতে কৌশলে তাকে একটি রুমের মধ্যে বন্ধী করে ধর্ষণ ও অমানবিক নির্যাতন করে হত্যা করে। পরে তার গলায় ওড়না প্যাঁচিয়ে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রাখে এবং আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। তারা মনে করেন, এই হত্যাকান্ডের সাথে শুধু সুমন নয় তার সহযোগী পর্টনাররাও জড়িত থাকতে পারে। হাসপাতালের এমডি ও অন্যান্য সকল পরিচালকদের গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসা করলে ঘটনার সঠিক তথ্য অবশ্যই বের হয়ে আসবে।
ধর্ষণ ও খুনের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে হাসপাতালের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর এমডি হানিফুর রহমান সুমনকে গ্রেপ্তার করেছে ভৈরব থানার পুলিশ।
ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ গোলাম মোস্তফা জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে হাসপাতালের একটি কক্ষের বিছানা থেকে রিমার মৃতদেহ উদ্ধার করি, ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহ কিশোরগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।
পুলিশ কর্মকর্তা জানান চাকরি ছাড়ার বিষয় নিয়ে এই হত্যাকাণ্ড হতে পারে তবে অপরাধী যেই হোক না কেন সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2022 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: