বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

ভৈরবে প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রেমিক জেলে

ওয়ান নিউজ 24 বিডি ডেস্ক
  • আপডেট সময় রবিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

হৃদয় আজাদ :
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে বিয়ের প্রলোভনে প্রেমিকাকে ধর্ষণের ঘটনায় প্রেমিক রুবেল তার মা মোমেনা বেগম ও চাচা জহির আহমেদসহ ৩ জনকে আসামি করে প্রেমিকার বাবা হাজী আবদুল হক বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে ভৈরব থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন । মামলা দায়েরের পর গত বৃহস্পতিবার পুলিশ প্রেমিক রুবেলকে আটক করে থানা হেফাজতে রাখে । শনিবার দুপুরে ধর্ষক প্রেমিক রুবেলকে কিশোরগঞ্জ জেল হাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ ।
প্রেমিকা নাহিদা আক্তার (ছদ্ম নাম ) ও তার পরিবার এবং এলাকাবাসি জানায় , উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের আবদুল হকের মেয়ে নাহিদা আক্তারের সাথে একই গ্রামের ও বংশের বাদল মিয়ার পুত্র রুবেল বেলায়েত স্থানীয় ওয়ার্ড আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করতো । একই বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করতে একই সাথে স্কুলে আসা-যাওয়া করার কালে ২ জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে । পরে ২ জনেই এস.এস. সি পাশ করে । বর্তমানে প্রেমিকা জিল্লুর রহমান সরকারি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামের ইতিহাস বিষয়ের অনার্স ২য় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার্থী এবং প্রেমিক ভৈরব হাজি আসমত কলেজের অনার্স ৩য় বর্ষের পৌরনীতি বিষয়ের পরীক্ষার্থী। প্রেমিক যুগলের মধ্যে ২০১১ সাল থেকে প্রেমের সম্পর্ক চলাকালে এরই মধ্যে নাহিদার বিয়ের জন্য বিভিন্ন স্থান থেকে বিয়ের প্রস্তাব এলে প্রেমিক রুবেল বিয়ে ভেঙে দেয়ার জন্য নাহিদাকে একাধিকবার চাপ দেয়। নাহিদাও প্রেমিকের বিয়ের আশ্বাসে বিয়ে ভেঙে দেয়। শুধু তাই নয় প্রেমিক নাহিদাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে একাধিকবার একই শয্যায় মিলিত হয় । কিন্ত গত ২০১৮ সালে রুবেল তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানালে নাহিদা ওই বছরের ২৪ অক্টোবর নিজ বাড়ীতে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এরপর থেকে ওই একেবারে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় । গতকাল বৃহস্পতিবার প্রেমিক ঢাকা থেকে ভৈরবে এলে পুলিশ তাকে আটক করে থানা হেফাজতে আটকে রাখে ।
এ বিষয়ে ভৈরব থানার ওসি (তদন্ত) বাহালুল খান বাহার জানান বিষয়টি ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে (ধর্ষণের অভিযোগে) মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার মূল অভিযুক্ত রম্পট প্রেমিককে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। স্থানীয়ভাবে মীমাংসা না হলে তদন্ত সাপেক্ষে বাকি আসামীদেরও দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2022 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: