বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪২ পূর্বাহ্ন

ভৈরবে সনদ নিবন্ধন অফিসের সার্ভারে জঠিলতা : ভোগান্তিতে চার সহস্রাধিক ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী

ওয়ান নিউজ 24 বিডি ডেস্ক
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০১৯

ভৈরব প্রতিনিধি :
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে জন্ম-মৃত্যু সনদ প্রদান অফিসের সার্ভারে গতি না থাকার কারণে প্রায় এক মাস যাবৎ জন্ম-মৃত্যু সনদসহ সব ধরণের অনলাইন নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে স্কুলে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। সার্ভার জটিলতার কারণে বিগত প্রায় এক মাস যাবৎ ভৈরব পৌর আবদুল আজিজ মাতৃসদনসহ উপজেলার ইউনিয়ন অফিসগুলোতেও এসব কার্যক্রম বন্ধ থাকায় চার সহস্রাধিক আবেদন জমা পড়ে আছে। এ নিয়ে অভিবাবকরা ক্ষোভ প্রকাশ করলেও কোনো প্রতিকার মিলছে না।

নিয়মানুসারে, ৪৫ দিনের শিশুর জন্মসনদ দেওয়া হয় সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। আর পাচঁ বছরের নিচে ২৫ টাকা ও পাচঁ বছরের উর্ধ্বে হলে ৫০টাকা করে ফি নেওয়া হয়। সব ঠিকঠাক থাকলে দু-চারদিনের মধ্যেই জন্মসনদ প্রদান সম্ভব। অথচ এখন ইন্টারনেটে গতি না থাকার কারণে সপ্তাহের পর সপ্তাহ ধরে জন্মসনদ হাতে পাচ্ছেন না আবেদনকারীরা।

ভৈরব পৌর মাতৃসদনের তথ্যমতে, পৌর অফিসে প্রতিদিন নিবন্ধনের আবেদন জমা পড়ে প্রায় অর্ধশত। আর উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে প্রতিদিন আদেবনের সংখ্যা দাঁড়ায় শতাধিক।

শহরের কালিপুর এলাকার মুছা মিয়া, ভৈরবপুর দক্ষিনপাড়ার রহিমা খাতুন, কমলপুর মধ্যপাড়ার সুজন মিয়া, চন্ডিবের মধ্যপাড়ার ফারজানাসহ অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, সন্তানকে স্কুলে ভর্তি করানোর জন্য জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রয়োজন। কিন্তু নিবন্ধনের জন্য জমা দেবার পনেরো দিন পরেও নিবন্ধন করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই ছেলেমেয়েদের স্কুলেও ভর্তি করতে পারছেন না তারা।

ভৈরব পৌর মাতৃসদন অফিসে গত একমাসে সহস্রাধিক আবেদন জমা পড়েছে এবং উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে আরো প্রায় তিন সহ¯্রাধিক আবেদন আটকে আছে। উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়ন মাতৃসদনের অফিস সচিব আতিকুর রহমান জানান, প্রায় এক মাস যাবৎ ইন্টারনেটে গতি না থাকার কারণে সনদ নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। একই সমস্যায় উপজেলার আগানগর ইউনিয়ন অফিসেও সনদ নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউনিয়ন সচিব মনিরুজ্জামান।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2022 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: