শনিবার, ১৫ অগাস্ট ২০২০, ১০:১৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
জিয়া আমাকে মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল: রাষ্ট্রপতি এপেক্স ক্লাব অব কিশোরগঞ্জের ব্যবস্থাপনায় বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ স্বাধীনতা- ডা: সত্যেন্দ্র চন্দ্র সরকার জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে বরিশাল ডিএলআরসি অফিসের শ্রদ্ধা নিবেদন হোসেনপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তক অপর্ণ ও আলোচনা সভা জাতীয় শোক দিবসে অষ্টগ্রাম উপজেলা প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধাঞ্জলি ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে ঈশা খাঁ বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জে জাতির পিতার ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত জাতীয় শোক দিবস কমলগঞ্জে বিভিন্ন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত ইয়াবা ও গাঁজাসহ ৫ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক কুমিল্লা র‌্যাব-১১

রেললাইনে জন্ম নেয়া নবজাতককে কুকুরের মুখ থেকে বাঁচালো পুলিশ

ডেস্ক নিউজ
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৩৯৬ বার পড়া হয়েছে

চট্টগ্রামের দেওয়ান হাট রেললাইনের পাশে জন্ম নেয়া এক নবজাতককে কুকুরের মুখ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে প্রাণে বাঁচালো ডবলমুরিং থানা পুলিশ। জন্মদাত্রী মা মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় সদ্যজাত শিশুটি কুকুরের পেটে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল। এমনকি অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মূমুর্ষূ অবস্থায় রক্ত দিয়ে সুস্থ করেছে আরেক পুলিশ কনস্টেবল। শুক্রবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে দেওয়ানহাট রেললাইনের কাছে নবজাতকটিকে পাওয়া যায়।  মা’সহ শিশুটিকে উদ্ধার করে এসআই আলাউদ্দিন হাসপাতালে নিয়ে যান।

এসআই আলাউদ্দিন জানান, স্থানীয় এক ছেলে এসে জানায় দেওয়ানহাট রেলওয়ে ডকের পাশে একটা বাচ্চা পড়ে আছে। টহল টিম দ্রুত গিয়ে দেখতে পায়, রেললাইনের পাশে একটা বাচ্চা নিচু স্বরে কান্না করছে। সারা শরীরে রক্তমাখা ছিল। দূরে একটা মহিলা শুয়ে আছে। দেখলাম মানসিক সমস্যা আছে।  বেশ কয়েকটি কুকুর শিশুটির পাশে ঘুরছিল খাবার মনে করে। মা ও শিশুটি চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদে মা ও শিশু হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডের ৫০ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন। শিশুটিকে একই হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়েছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সম্ভাব্য ভোর ৫টার দিকে শিশুটির জন্ম হয়েছে। শীতের মধ্যে প্রায় চার ঘণ্টা খোলা আকাশের নিচে থাকায় তার বুকে ঠাণ্ডা লেগেছে। এজন্য তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ায় মায়ের শরীর খুবই দুর্বল ছিল। চিকিৎসকের পরামর্শে ডবলমুরিং থানার এএসআই মেহেদি তাকে রক্ত দিয়েছেন। এছাড়া ওষুধ-ইনজেকশনসহ আনুষঙ্গিক খরচও ডবলমুরিং থানা দিচ্ছে।

ডবলমুরিং থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জহির হোসেন জানিয়েছেন, শিশুটি সুস্থ হওয়ার পর আদালতের মাধ্যমে অভিভাবকের ব্যবস্থা করা হবে। এর আগ পর্যন্ত যত সাপোর্ট দরকার, সব পুলিশ দিবে। এসআই আলাউদ্দিন জানান, পুলিশ যখন বাচ্চাটিকে উদ্ধারের জন্য যায়, ৫-৬ টা কুকুর আশপাশে ঘোরাফেরা করছিল। কিছু সময় পেলে হয়তো শিশুটি কুকুরের খাবারে পরিণত হত।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2020 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com