বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০, ১০:৩৬ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
শ্রীমঙ্গলে দুটি গন্ধগোকুল উদ্ধার, লাউয়াছড়া বনে অবমুক্ত করোনামুক্ত হয়ে দেশ আবারও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাবে: প্রধানমন্ত্রী গত ২৪ ঘন্টায় ২৭৩৩ জনের দেহে করোনা শনাক্ত, মোট ১৯৬,৩২৩ শেষ ২৪ ঘন্টায় বাংলাদেশে করোনা কেড়ে নিল আরও ৩৯ জনের প্রাণ সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত হয়েছে দেশের দীর্ঘতম বাঁশের সাঁকো জিজ্ঞাসাবাদে সংবাদকর্মীদের দেখে নেবার হুমকি দেন সাহেদ নিকলীর হাওরের পর্যটন এলাকায় পর্যটক ও যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ গত ২৪ ঘন্টায় ৩৫৩৩ জনের দেহে করোনা শনাক্ত, মোট ১৯৩,৫৯০ ১০ হাজার করোনা পরীক্ষার ৬ হাজার রিপোর্টই ভুয়া দিয়েছে রিজেন্ট বাংলাদেশে করোনায় আরও ৩৩ জনের প্রাণহানি

সৈয়দ আশরাফের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী কাল

ডেস্ক নিউজ
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৬২২ বার পড়া হয়েছে

আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আগামীকাল।

সৈয়দ আশরাফ ২০১৯ সালের এই দিনে ব্যাংককের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর।

সৈয়দ আশরাফের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আগামীকাল সকাল ৮টায় বনানী কবরস্থানে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবে আওয়ামী লীগ।

১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর কারাগারে পিতা সৈয়দ নজরুল ইসলামসহ জাতীয় চার নেতার নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর তিনি যুক্তরাজ্য চলে যান। প্রবাস জীবনে তিনি যুক্তরাজ্যে আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করার ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

আশরাফুল ইসলাম ১৯৯৬ সালে দেশে ফিরে আসেন এবং কিশোরগঞ্জ সদর আসন থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে প্রথমবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এ সময় তিনি বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

২০০১ সালের ১ অক্টোবরে অনুষ্ঠিত অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় তিনি নির্বাচিত হন এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনেও তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৫ সালের ১৬ জুলাই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন।

তিনি এক কন্যার জনক। তাঁর স্ত্রী শিলা ইসলাম ২০১৭ সালের অক্টোবরে মারা যান।

সৈয়দ আশরাফ ১৯৫২ সালের ১ জানুয়ারি ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম ১৯৭১ সালে মুজিবনগর সরকারের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি ছিলেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অন্যতম সংগঠক ছিলেন।

সৈয়দ আশরাফ ছাত্র জীবনে ছাত্র রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। স্বাধীনতার পর তিনি ময়মনসিংহ জেলার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া তিনি ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-প্রচার সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

আশরাফুল ইসলাম ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধে অংশ নেন। তিনি মুক্তিবাহিনীর একজন সদস্য ছিলেন। ভারতের দেরাদুনে প্রশিক্ষণ নেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2020 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com