বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন

হোসেনপুরে শিক্ষা কর্মকর্তার মোবাইল নাম্বার ক্লোন করে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

সঞ্জিত চন্দ্র শীল
  • আপডেট সময় রবিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৫১৪ বার পড়া হয়েছে

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদের মোবাইল নাম্বার ক্লোন করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতারণার শিকার হারেঞ্জা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা তাহমিনা রৌশন সিদ্দিকা এ অভিযোগে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। (হোসেনপুর থানা জিডি নং- ৪২৬/১২/১০/২০১৯ খ্রি:)।

তিনি মুটো ফোনে জানান, গত শনিবার (১২ অক্টোবর) সকাল ৮টার সময় অপরিচিত ০১৯৭১-৪১১৬২৭ নাম্বার থেকে প্রধান শিক্ষিকার মুটো ফোনে একটি ফোন আসে। তখন প্রধান শিক্ষিকা পরিচয় জানতে চাইলে ওই ব্যক্তি দমক দিয়ে বলেন, আপনি প্রতিষ্ঠানের প্রধান হয়েও ইউএনওকে চিনেন না ? প্রধান শিক্ষিকা নিজকে লজ্জিত বলে বলেন; স্যার আপনি নতুন এসেছেন; যে জন্য আপনার নাম্বারটি আমি এখনও পাইনি। এ কথা বলার কিছুক্ষণ পরেই হোসেনপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার সেইভ করা নাম্বার থেকে আবার প্রধান শিক্ষিকার (০১৯১৭-৮৪৯৭৫৯) নাম্বারে ফোন দিয়ে বলেন, আপনার প্রতিষ্ঠানের নামে একটি ল্যাবটব বরাদ্দ হয়েছে। এটি নিতে হলে এর জন্য কিছু খরচা-পাতি আছে বলে ০১৮৭২-৬২৪৬৩৮ এ নাম্বারে আট হাজার টাকা বিকাশের করে পাঠান। বিকাশে টাকা পেয়ে প্রতারক আবার ফোন করে বলেন, আপনার প্রতিষ্ঠানে আরো কোন শিক্ষক যদি এ রকম ল্যাবটব নিতে চান তবে সর্বোচ্চ আরো ৫ জনে নিতে পারবেন।

তাঁদেরও এরকম আট হাজার করে টাকা দিতে হবে ! এ কথা শোনার পর তিনি অন্য শিক্ষকদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ম্যাসেসসটি আরো ৫জন শিক্ষকদের জানান। পরে অন্যদের মনে বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ দেখা দিলে তাঁরা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো:আবুল কালাম আজাদকে অবগত করেন। তখনই মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বলেন বিষয়টি ভুয়া এবং আপনারা প্রতারণা শিকার হচ্ছেন। তখন তিনি প্রতারণার বিষয়টি জানতে পেরে তাৎক্ষণিক সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের সর্তক করেন। এ বিষয়ে হোসেনপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানায়, আমি পরে জানতে পেরে আরো একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের কাছে আমার নাম বলে টাকা চাওয়া হয়েছিল বলে জানতে পারি।

প্রতারণার বিষয়টি হোসেনপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও ) শেখ মহি উদ্দিন জানতে পেরে; তিনি নিজের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইস বুক পেইজে মোবাইল নাম্বার দিয়ে এ রকম হচ্ছে বলে সকলকে সর্তক থাকতে বলেন। এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান। হোসেনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো:মোস্তাফিজুর রহমান জিডির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ব্যাপারে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তার অপরাধীকে খোঁজে বের করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2020 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com