বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:২৬ অপরাহ্ন

৪০ কেজি ফুল দিয়ে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল সাজালো রিক্সাওয়ালা

মো: আল-আমীন, কিশোরগঞ্জ
  • আপডেট সময় রবিবার, ২১ মার্চ, ২০২১
  • ২২ বার পড়া হয়েছে
৪০ কেজি ফুল দিয়ে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল সাজালো রিক্সাওয়ালা

প্রায় তিন মাস আগে স্বপ্নে দেখা পেয়েছেন বঙ্গবন্ধুর। এর আগেও তিনি একাধিকবার স্বপ্নে বঙ্গবন্ধুকে দেখেছেন। এমনটাই দাবি কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার বড় আজলদীর বাসিন্দা মো: দ্বীন ইসলামের। কিন্তু এবার তিনি স্বপ্নে জেনেছেন পাকুন্দিয়া সমাজসেবা অফিসের সামনে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর ছবিটিকে ৪০ কেজি ফুল দিয়ে সাজাতে হবে। ইতিপূর্বে ২০১৭ সালে টুঙ্গিপাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজারে ৭শ টাকা দামের দুটি কবুতর উড়িয়েছেন স্বপ্নে নির্দেশনা পেয়ে।

অবাক ব্যাপার হলেও সত্য যে, প্রায় তিন মাস ধরে রিক্সা চালিয়ে রোজগার করে ১০ হাজার টাকা সঞ্চয় করেছেন স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার জন্য। রোববার (২১ মার্চ) ভোর রাত থেকে সাথে আরও ৩/৪ জন সহযোগী নিয়ে কাজে লেগেছেন বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যালকে সাজানোর জন্য। এজন্য তিনি জেলা শহর থেকে তাজা গোলাপ ফুল, গাঁদা ফুল ও ভিন্ন ভিন্ন ফুল দিয়ে সাজানো বড় ফুলের তোরা অর্ডার করে আগের রাতই নিয়ে রেখেছিলেন। সকাল প্রায় ১০ টায় সাজানোর কাজ শেষ হলে মুর‌্যালটি রূপ নেয় অপরূপ সৌন্দয্যে। স্থানীয় রাজনীতিবিদ, মুজিবপ্রেমী ও সাংবাদিকরা খবর পেয়ে ছুটে আসেন তা দেখতে। জেলা শহর থেকে অনেকে গিয়েছেন তা দেখার জন্য। সারাদিন এটি দেখার জন্য উৎসুক জনতাও ভীড় করেছে।

মো: দ্বীন ইসলাম পেশায় একজন রিক্সাওয়ালা। পরিবারে রয়েছে স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলের বয়স আনুমানিক ৯ বছর এবং মেয়ের বয়স ১৪ বছর। ২০০৪ সালে সংসার জীবনে আবদ্ধ হন তিনি। টানাপোড়নে সংসারেও তিনি সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক কাজে সংযুক্ত থাকেন সব সময়। মুজিব প্রেমী মো: দ্বীন ইসলামের সাথে কথা বলে জানা যায়, তিনি ১৪৩৩ হিজরীতে ধর্মীয় শিক্ষার অগ্রগতির জন্য তার এলাকায় একটি মাদ্রাসা নির্মাণ করেছেন যার নাম ইউনূস পাগল ফুরকানিয়া মাদ্রাসা। এছাড়াও ২০১৭ সালে স্থানীয় লোকজনের ধর্মীয় ইবাদতের সুবিধার জন্য মিনা মসজিদ নামে একটি মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেছেন। এসব সামাজিক কাজ ও প্রতিষ্ঠান করার কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান, এসব তিনি নি:স্বার্থভাবে করে যাচ্ছেন।

৪০ কেজি ফুল দিয়ে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল সাজালো রিক্সারওয়ালা
স্থানীয় সাংবাদিক ও শিক্ষক মো: তরিকুল ইসলাম শাহীন জানান, মো: দ্বীন ইসলাম একজন খাঁটি বঙ্গবন্ধু প্রেমিক ও দেশ প্রেমিক। বঙ্গবন্ধুর প্রতি তাঁর ভালোবাসা থেকেই তিনি এ কাজ করেছেন। তার এ কাজ অবশ্যই অনুকরণীয়।

বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল সাজানো দেখতে আসা স্থানীয় মো: বিল্লাল হোসেন জানান, হয়তো তিনি বঙ্গবন্ধুকে গভীর ভালোবাসেন। তাই হয়তো তিনি একাধিক স্বপ্নে দেখেছেন। বঙ্গবন্ধুর প্রতি তার এই ভালোবাসাকে ছোট করে দেখার সুযোগ নেই।

ফুলের দোকানের মালিকের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রায় তিন মাস ধরে তিনি ফুলের দর দাম করছেন এবং এই মুর‌্যালটিকে কিভাবে সুন্দর করে সাজানো যায় সেটি পরিকল্পনা করে আসছিলেন। আমাদের সাথে নিয়ে তিনি আজ ভোর থেকেই এঁটি সাজানোর কাজ শুরু করেছিলেন।

এদিকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী চলছে। গত ১৭ মার্চ পালিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর ১০১তম জন্মবার্ষিকী। এমন সময়ে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যালকে ফুলেল সাজে সজ্জ্বিত করার বিষয়টি পাকুন্দিয়ার উপজেলার মানুষের ও মুজিব প্রেমীদের হৃদয় জয় করেছে মো: দ্বীন ইসলাম। ওয়াননিউজ টুয়েন্টিফোর বিডি’কে তিনি জানান, বঙ্গবঙ্গুকে তিনি ভালোবাসেন। তাকে ভালোবেসে নি:স্বার্থভাবে তিনি এমন কাজ করেছেন।

amena.com.bd

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2021 Onenews24bd.Com
Theme Customized by Le Joe
%d bloggers like this: