বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪, ০২:০২ অপরাহ্ন

নোটিশ :
আমাদের নিউজ সাইটে খবর প্রকাশের জন্য আপনার লিখা (তথ্য, ছবি ও ভিডিও) মেইল করুন onenewsdesk@gmail.com এই মেইলে।

আবহানীকে হারিয়ে ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ান মোহামেডান

স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৩০ মে, ২০২৩
  • ৭ বার পড়া হয়েছে
আবহানীকে হারিয়ে ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ান মোহামেডান

কুমিল্লার শহিদ ধীরেন্দ্রনাথ স্টেডিয়ামে ফেডারেশন কাপের ফাইনালে টান টান উত্তেজনাকর ম্যাচের সাক্ষী হয়েছে বাংলার ফুটবল প্রেমীরা। দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনী ও মোহামেডানের মধ্যকার ১২০ মিনিটের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে টাইব্রেকারে জয় তুলে নিয়েছে সাদা-কালোরা।

মঙ্গলবার ঢাকা ডার্বির নির্ধারিত সময়ের খেলা ৩-৩ গোলে ড্র হয়। এরপর অতিরিক্ত সময়েও স্কোরলাইন ৪-৪ থাকলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। যেখানে ৪-২ ব্যবধানে জয় তুলে নিয়ে ১৪ বছর পর আবার ফেডারেশন কাপের শিরোপা ঘরে তুলে মোহামেডান।

ম্যাচের আগে মোহামেডানের টিম মিটিংয়ের কোচ আলফাজ আহমেদ বলেছিলেন, ‘আমাদের হারানোর কিছু নেই। বসুন্ধরা কিংসকে হারিয়ে আমরা অনেকটা চ্যাম্পিয়ন হয়েই গেছি। তাই চাপ নেয়ার কোনো দরকার নেই। যার যার স্বাভাবিক খেলাটা খেলবে।’

ম্যানেজার ইমতিয়াজ আহমেদ নকীবও একই সুরে খেলোয়াড়দের বলেন, ‘ফাইনাল খেলছ, কথাটা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেল। আর দশটা ম্যাচের মতোই নাও। নিজের সেরাটা দাও।’

১৪ বছর পর সাদাকালোরা ফেডারেশন কাপের ফাইনালে উঠে আজ সেরাটাই দিয়েছে আবাহনীর বিপক্ষে। দুই গোলে পিছিয়ে দারুণ প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে ২-২ করেছে। ৩-২ গোলে পিছিয়ে পড়ে আবার করেছে ৩-৩। ফেডারেশন কাপের ৪৩ বছরের ইতিহাসে ফাইনালে এই প্রথম হ্যাটট্রিক করে ইতিহাস গড়লেন মোহামেডান স্ট্রাইকার ও অধিনায়ক সোলেমান দিয়াবাতে। মোহামেডানকে ‘জীবন’ দিয়ে বারবার ম্যাচ ফিরিয়ে এনেছেন তিনিই।

এখানেই শেষ নয়। অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধে নিজেই পেনাল্টি আদায় করে তা থেকে গোলও করেছেন। শেষ পর্যন্ত তাঁর ৪ গোলে ম্যাচটা হয়ে দাঁড়ায় ‘দিয়াবাতের ম্যাচ’। মোহামেডান তখন জয়ের স্বপ্ন বিভোর। কিন্তু নাটকীয়তার বাকি ছিল আরও। অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ার্ধে বক্সের বাইরে থেকে আচমকা শটে ৪-৪ করেন আবাহনীর ডিফেন্ডার রহমত মিয়া। ৯০ মিনিটে ৩-৩ ম্যাচ অতিরিক্ত সময়ে ৪-৪।

জয়ী দল বেছে নিতে এরপর টাইব্রেকারের ভাগ্য পরীক্ষা। টাইব্রেকারে প্রথম গোলটাও দিয়াবাতের। কিন্তু আবাহনীর রাফায়েলের নেয়া প্রথম শটটা আটকে দেন মোহামেডানের বদলি গোলকিপার আহসান হাবিব। মোহামেডানের চতুর্থ শট আটকে দেন আবাহনী গোলকিপার শহিদুল। আবাহনীর পঞ্চম শট নেন কলিনদ্রেস। কিন্তু শটটা আটকে দিয়েছেন মোহামেডান গোলকিপার। শেষ পর্যন্ত মোহামেডানের পঞ্চম শটে কামরুল গোল করতেই উল্লাসে ফেটে পড়ে সাদা-কালোরা। টাইব্রকারে ৪-৩ গোলে জিতে ১৪ বছর পর ফেডারেশন কাপ ঘরে তুলেছে মতিঝিলের ঐতিহ্যবাহী দলটি।

টাইব্রেকারে মোহামেডানের সুলেমানে দিয়াবাতে, আলমগীর কবির রানা, রজার দুরাতে দি অলিভিয়েরা, কামরুল ইসলাম পান জালের দেখা। মিস করেন শাহরিয়ান ইমন।

আবাহনীর প্রথম শট নিতে এসে হতাশ করেন অধিনায়ক রাফায়েল আগুস্তো দি সিলভা। এই ব্রাজিলিয়ানের দুর্বল শট ঝাঁপিয়ে আটকান বদলি গোলরক্ষক আহসান হাবিব বিপু। দেনিয়েল কলিনদ্রেস সোলেরাও পারেননি লক্ষ্যভেদ করতে। জালের দেখা পান কেবল এমেকা ওগবাহ, মোহাম্মদ ইউসুফ।

১৪ বছর পর ফেডারেশন কাপে মোহামেডান ফাইনালে উঠেছিল। আর তাতে মোহামেডানকে যেভাবে কাপ উপহার দিলেন দিয়াবাতে এবং তার সতীর্থরা, তা অনেক দিন মনে রাখার মতো। বাংলাদেশের ক্লাব ফুটবলে অনেক রুদ্ধশ্বাস ফাইনালই হয়েছে। এটি সর্বকালের সেরা কি না, এটা সময়ই বলবে।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2024 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com