সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

কুলিয়ারচরে মাইকিং করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে দাওয়া-পাল্টা দাওয়া! ভিডিও দেখুন

আলী হায়দার, কুলিয়ারচর, কিশোরগঞ্জ
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৯ মার্চ, ২০২১
কুলিয়ারচরে মাইকিং করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে দাওয়া-পাল্টা দাওয়া! ভিডিও দেখুন

কুলিয়ারচরে মাইকিং করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে দাওয়া-পাল্টা দাওয়া!

বাড়িঘর ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নি সংযোগ। পুলিশসহ আহত অন্তত ১৫।

ঘটনা নিয়ন্ত্রণে পুলিশের গুলি।

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রামবাসীর মধ্যে দু’দিন ধরে দাওয়া-পাল্টা দাওয়ার ঘটনায় বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন রাবার বুলেট (গুলি) ও কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়েছে।

রোববার (৭ মার্চ) ও সোমবার (৮মার্চ) দুইদিনব্যাপী উপজেলার ছয়সূতী ইউনিয়নের মাধবদী ও কলাকোপা গ্রামবাসীর মধ্যে দফায় দফায় দাওয়া-পাল্টা দাওয়া, হামলা, বাড়ীঘর ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। হামলায় পুলিশসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনতে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও কাঁদনি গ্যাস ছুঁড়ে।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত শনিবার (৬মার্চ) সন্ধ্যায় ছয়সূতি ইউনিয়নের কলকোপা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মীর সাইকুল ইসলাম মসজিদে যাবার সময় পেছন থেকে আসা ব্যাটারী চালিত একটি অটোরিকশা তাকে ধাক্কা দেয়। এতে মীর সাইকুল ইসলাম আহত হন। এই ঘটনায় অটোরিকশা চালক মাধবদী গ্রামের আব্দুল্লাহকে আটক করে কলাকোপা গ্রামের যুবকরা তাকে চর-থাপ্পর দেয়। এ ঘটনায় অটোরিকশা চালক আব্দুল্লাহর গ্রামের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে পরদিন রোববার সকাল ৯ টার দিকে মাধবদী লোকজন জড়ো হয়ে কলাকোপা গ্রামে ঢুকে পড়ে। পরে দুই এলাকার লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে দু’গ্রামবাসীর মধ্যে দাওয়া পাল্টা দাওয়া ও সংঘর্ষ সূত্রপাত হয় । এ সময় একটি পাকা ঘরসহ চারটি বশত ঘরে ব্যাপক ভাঙচুর করে। ঘটনার পরদিন সোমবার সকালে পুনরায় দু’গ্রামবাসীর মধ্যে দাওয়া পাল্টা দাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকারীরা হাজী মো. সিরাজুল ইসলাম শিরুর দুইটি বসতঘরে অগ্নিসংযোগ করে ও একাধিক বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাট করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন রাবার বুলেট ও কাঁদনী গ্যাস ছুঁড়ে।

এই ঘটনার খবর পেয়ে ভৈরব সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার রেজওয়ান দিপু, কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইয়াছির মিয়া, কুলিয়ারচর পৌর মেয়র হাসান সারোয়ার মহসিন ও কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম সুলতান মাহমুদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ ব্যাপারে ছয়সূতি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মীর মো. মিছবাহুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, আহত মীর সাইকুল ইসলাম তার বড় ভাই। তিনি একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এবং এলাকার সর্বজন শ্রদ্ধেয় মানুষ। শনিবার সন্ধ্যায় অটোরিকশা চালক তাকে ধাক্কা দেয়। ফলে তার হাতে ছুট লাগে। কিন্তু ওই চালক রিকসাটি না থামিয়ে দ্রুত চলে যাবার কারণে আমাদের কলাকোপা গ্রামের কয়েকজন যুবক তাকে শ্বাসনের দৃষ্টিতে আটকায়। পরে বিষয়টি সমাধানের জন্য মাধবদী গ্রামে যোগাযোগও করা হয়। কিন্তু তারা কারো কথা না শুনে রোববার সকালে আমাদের গ্রামে হামলা করে।

অভিযোগ অস্বীকার করে মাধবদী গ্রামের মো. জহিরুল ইসলাম সহ একাধিক লোক বলেন, শনিবার সন্ধ্যায় তারা তুচ্ছ বিষয়কে পুঁজি করে অটোরিকশা চালক আব্দুল্লাহকে আটক করে বেধরক মারপিট করে। ফলে রোববার সকালে দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পরদিন সোমবার সকাল থেকে কলাকোপা গ্রামের লোকজন তাদের উপর হামলা করে শিরু হাজীর দুটি ঘরে অগ্নিসংযোগ করে।

কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি) এ কে এম সুলতান মাহমুদ বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত করে। তুচ্ছ ঘটনায় এই সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষ থামাতে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়া হয়েছে স্বীকার করে তিনি বলেন, ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ১৫ জন অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিলো।

https://web.facebook.com/watch/?v=889700511788352

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2021 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: