বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৪২ পূর্বাহ্ন

নিকলীতে বাড়ছে মরন নেশা ইয়াবার যোগান

ওয়ান নিউজ 24 বিডি ডেস্ক
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক, নিকলী
কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলা সদরসহ বিস্তীর্ণ হাওরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে মরন নেশা ইয়াবার যোগান। ফলে এই মাদকের নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছে হাওরের যুব সমাজ ও বিভিন্ন বয়সের নারী- পূরুষ।
আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাধিক সূত্র জানায়, হাওরের গ্রামে গ্রামে এখন সহজলভ্য হয়ে পড়েছে ইয়াবা। কারণ হাওরে মাদক বহন ও বাজারজাত করা খুবই সহজ। জলপথে সহজেই নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছে যাচ্ছে মাদক। জেলা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, জেলার ভৈরব উপজেলা হচ্ছে ইয়াবাসহ মাদকের পাইকারি হাট। সড়ক ও নদীপথে সহজেই ভৈরবে মাদক পৌঁছে যাচ্ছে গডফাদারদের হাতে। এসব মজুদ হওয়ার পর সড়ক ও নদীপথে কিশোরগঞ্জে বিভিন্ন উপজেলায় সরবরাহ হয়ে থাকে ইয়াবা ব্যবসায়ীদে হাতে। আটক হওয়া ইয়াবা চক্রের সদস্যরা হাওরের যুবকরাসহ বিভিন্ন বয়সের মানুষকে আসক্ত করছে এসব ইয়াবায়। পরে হাওরের বিভিন্ন এলাকায় ইয়াবা ছড়িয়ে দেয় তাদের দিয়ে।
ইয়াবাকে কেন্দ্র করে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের একটি শক্তিশালী চক্র গড়ে উঠেছে হাওরের নিকলী ,ইটনা , মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায়। বিশেষ করে হাওরের এসব উপজেলায় মাদক সম্রাজ্ঞী হিসেবে পুলিশের নজরে এসেছে বিভিন্ন নারী। মাদকবিরোধী অভিযানের শুরু থেকে র‌্যাব-পুলিশ নিকলী উপজেলায় এ পর্যন্ত শতাধিক মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। এসব অভিযানের প্রতিটি থেকে ১০ টি হইতে সর্বোচ্চ ৫০০ টি ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে।
নিকলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কারার সাইফুল ইসলাম জানান, মাদকে ছেয়ে গেছে নিকলী উপজেলাসহ ইটনা, মিঠামইন, ও অষ্টগ্রাম উপজেলার হাওর। বিশেষ করে ইয়াবা সব মাদককে ছাড়িয়ে শীর্ষস্থানে অবস্থান করছে। ইয়াবা সেবন করা ইয়াবাসেবী তরুণদের মধ্যে একটা ক্রেজ সৃষ্টি করেছে।
নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.নাছির উদ্দিন ভূইয়া জানান, গ্রেফতারকৃত সকল ইয়াবা ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে নিকলী থানায় মাদক আইনে মামলা করা হয়েছে।
কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম বলেন, হাওরের মাদক নিয়ন্ত্রণে তথা ইয়াবার মূল উৎপাটনে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে পুলিশকে। বিশেষ অভিযানের পাশাপাশি হাওরের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াতকারী ট্রলার, কার্গোসহ অন্যান্য জলযানে মাদক পরিবহন করা হচ্ছে কি-না তা খতিয়ে দেখে গডফাদারদের চিহ্নিত ও গ্রেফতারের জন্য চার দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে থানার ওসিদের।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2021 Onenews24bd.Com
Site design by Le Joe
%d bloggers like this: