শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন

নোটিশ :
আমাদের নিউজ সাইটে খবর প্রকাশের জন্য আপনার লিখা (তথ্য, ছবি ও ভিডিও) মেইল করুন onenewsdesk@gmail.com এই মেইলে।

প্রথমবারের মতো পাই (π) দিবস উদযাপন করেছে খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজ

ডেস্ক নিউজ
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ, ২০২৩
  • ৭২ বার পড়া হয়েছে
প্রথমবারের মতো পাই (π) দিবস উদযাপন করেছে খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজ

উৎসব মূখর পরিবেশে খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজে পাই (π) দিবস উদযাপিত হয়েছে। দেড় শতাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে ১৪ মার্চ মঙ্গলবার কলেজ প্রাঙ্গণ সারাদিন মুখরিত ছিল। শিক্ষার্থীরা পাই (π) লেখা সম্বলিত একই রঙের টিশার্ট পরিধান করে বিভিন্ন অনুষ্ঠান পালন করে।

অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো পাই-শোভাযাত্রা, পাই-ডিসপ্লে, পাই কেক কাটা এবং পাই নিয়ে বিভিন্ন কবিতা ও গান পরিবেশন।

শোভাযাত্রা উদ্বোধন উপলক্ষে খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো: শাহ আলমগীর বলেন – এক সপ্তাহ আগে যা ছিল কল্পনাতীত আজ তা বাস্তব । এটি যারা সম্ভব করেছেন তাদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ । পুরো খাগড়াছড়ি জেলা বিজ্ঞান শিক্ষায় অনেক অনেক পিছিয়ে আছে । স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে বিজ্ঞান শিক্ষকের অভাব শিক্ষার্থীদের মাঝে গণিত ভীতির জন্ম দিচ্ছে । যার ফলে পুরো জেলায় বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীর সংখ্যা দিন দিন কমছে । আমি বিশ্বাস করি আজকের এ আয়োজন শিক্ষার্থীদের মাঝে গণিত ভীতি কাটাতে ও বিজ্ঞান শিক্ষাকে জনপ্রিয় করতে অবদান রাখবে ।

অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক উক্ত কলেজের  গণিত বিভাগের প্রভাষক মোঃ খলিলুর রহমান বলেন – বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নানান আয়োজনে দিবসটি পালন হলেও খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজ তথা খাগড়াছড়ির ইতিহাসে এবারই প্রথম দিবসটি পালন করা হচ্ছে। কলেজে যোগদান করার পরই দেখতে পেলাম কলেজের মেয়েরা গণিতে বেশ দুর্বল। এই দুর্বলতার অন্যতম কারণ তারা গণিতকে ভয় পায়। গণিত যে আনন্দের বিষয় এটা অনেকের ধারনা ছিল না। পাই দিবস উদযাপনের মাধ্যমে অনেকের মধ্যে গণিতের ভীতি কমে আসবে বলে আশা করছি। সেই সাথে এবারের ন্যায় প্রতি বছর দিবসটি পালন করার প্রত্যাশা করছি।

উল্লেখ্য পাই-এর মান প্রায় ৩.১৪ বলে প্রতি বছর ১৪ মার্চকে সারা বিশ্বের গণিতবিদগণ পাই দিবস হিসাবে পালন করে থাকেন। ১৯৮৮ সালে পদার্থবিদ ল্যারি শ’ পাই (π) দিবসের ধারণার প্রবর্তন করেন। সান ফ্রান্সিকোর বিজ্ঞান জাদুঘরের কর্মকর্তা ল্যারি শ’ এ দিবস পালনের উদ্যোক্তা বলে তাকে ‘পাই-এর রাজপুত্র’ বলা হয়। ২০০৯ সালের ১২ মার্চ যুক্তরাষ্ট্র সরকার ১৪ মার্চকে জাতীয় পাই (π) দিবস হিসেবে পালনের অনুমোদন দেয়। তবে বাংলাদেশে পাই (π) দিবস উদযাপিত হচ্ছে ২০০৬ সাল থেকে।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2024 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com