বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৬:৪৭ অপরাহ্ন

নোটিশ :
আমাদের নিউজ সাইটে খবর প্রকাশের জন্য আপনার লিখা (তথ্য, ছবি ও ভিডিও) মেইল করুন onenewsdesk@gmail.com এই মেইলে।
সর্বশেষ খবর :
চুরি করা গরু জবাই করে মাংস পাচারকালে আটক-২ মৌলভীবাজারে কোটা সংস্কারের নামে দেশব্যাপী নৈরাজ্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন ‘কোটা আন্দোলনকারীদের আলোচনার প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী, আজকেই বসতে প্রস্তুত’ মৌলভীবাজারে জেলা জামায়াতের আমীর গ্রেফতার সব অনভিপ্রেত ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্ত হবে: প্রধানমন্ত্রী হঠাৎ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষামন্ত্রী আমার বিশ্বাস উচ্চ আদালতে ন্যায়বিচার পাবে শিক্ষার্থীরা: প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান পুলিশের যাত্রাবাড়ীতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ, মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারের টোল প্লাজায় আগুন

স্বাধীনতার ৪৮ বছরেও নিকলীতে শিল্প প্রতিষ্ঠান না হওয়ায় কর্মসংস্থানের অভাব প্রকট

ওয়ান নিউজ 24 বিডি ডেস্ক
  • আপডেট সময় সোমবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০১৯
  • ৪১৮ বার পড়া হয়েছে

দিলীপ কুমার সাহা :

কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলা সদরসহ সাতটি ইউনিয়নে ভূমিহীন, ক্ষেতমজুর, বেকার, শিশুশ্রমিকসহ ছিন্নমূল মানুষের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। রাজধানী অথবা জেলা শহরের সঙ্গে নিকলী উপজেলার আধুনিক যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে উঠলেও স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরও এখানে কোনো শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেনি। এখানে কৃষিভিত্তিক শিল্প গড়ে তোলার সম্ভবনা থাকলেও উদ্যোক্তা না থাকায় সেটিও হচ্ছে না। কর্মসংস্থানের অভাব এখানে চরম আকার ধারণ করেছে।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শতকরা ৬০ ভাগ লোকই ভূমিহীন ও ক্ষেতমজুর। ফসলের মৌসুম বাদ দিলে এই জনগোষ্ঠি প্রায় সাত মাস কর্মহীন থাকে। অন্য কাজের সুযোগ না থাকায় দেশের বিভিন্ন বড় শহরে গিয়ে কম পারিশ্রমিকে কাজ করে জীবিকা অর্জন করেন। অপর দিকে শিক্ষিত-অর্ধশিক্ষিত মিলিয়ে বেকারের সংখ্যা প্রায় অর্ধলক্ষাধিক। এদের মধ্যে অনেকেই নিম্নবিত্ত পরিবারের সদস্য হওয়ায় রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের ফাইফরমাশ খাটে বা স্বার্থন্বেষী মহলের ক্রীড়নক হয়ে কাজ করে। শিশুশ্রম নিষিদ্ধ হলেও নিকলী সদরসহ সাতটি ইউনিয়নের বাজার ও গ্রামের ছোট ছোট বাজারগুলোর অতি অল্প মজুরিতে চা’য়ের দোকান, রিকশা-ট্যাম্পুর চালক ও হেলপার, ওয়েল্ডিংয়ের দোকান, হোটেল-রেস্তোরাঁয়, ইটের ভাটা, জুতা পালিশের কাজ শিশুরা অহরহ করে যাচ্ছে। অনেকে শিশু জড়িয়ে পড়েছে ভিক্ষাবৃত্তিতেও। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা ব্যক্তিগতভাবে এসব সমস্যার কথা স্বীকার করলেও সভা-সমাবেশে গলা ফাটিযে শুধু উন্নয়নের কথা বলেন। সদর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও নিকলী উপজেলা সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, কোনো সরকারই নিকলীর নানা সমস্যা নিয়ে সমাধানে পদক্ষেপ নেয়নি। ফলে এসব সমস্যা এখন প্রকট আকার ধারণ করেছে। নিষিদ্ধ থাকা সত্ত্বেও শিশুরা পরিবারের ভরণ-পোষণের জন্যই শ্রম বিক্রি করছে। গবাদিপশু পালন, ছাগল প্রকল্পের ঋণ, কৃষিঋণের টাকা প্রভাব খাটিয়ে এমন সব লোক নিয়ে নিচ্ছে যাদের সঙ্গে এসব প্রকল্পের কোনো সম্পর্ক নেই। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা শক্তিশালী হলে গ্রামের সমস্যাগুলো সমাধানে জনপ্রতিনিধিরা সচেষ্ট হবেন । বর্তমানে তারা স্বাধীনভাবে কাজ করতে না পারায় সমস্যাগুলো প্রকট আকার ধারণ করছে। কারণ তারা উদ্যোগ নিলেও দলীয় প্রভাবের বাইরে যেতে পারেন না।

Tahmina Dental Care

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

© All rights reserved © 2024 Onenews24bd.Com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com